Lifestyle Pro BD- Fashion & Beauty Store

How To Get Rid of From Melasma - মেছতা সহজে দূর করার উপায়

Melasma is a common skin problem now a days. The condition causes dark, discolored patches on your skin. It is also called chloasma, or the “mask of pregnancy,” when it occurs in pregnant women. The condition is much more common in women than men. Melasma casuses due to sun exposure, genetic predisposition, hormone changes, skin irrigation etc.

মেছতা কি
"মেছতা" এই নামের সঙ্গে আমরা অনেকেই পরিচিত মেছতা হচ্ছে চেহারায় বয়সের ছাপ পড়ার প্রাথমিক লক্ষণ, মানুষের ত্বকে মেলানিন নামক একটি উপাদান থাকে যার উপস্থিতির কারণে ত্বক ফর্সা বা কালো হয়। বয়সের সাথে সাথে আমাদের ত্বকের মেলানিন এর ভারসাম্যতা নষ্ট হয় এবং ত্বকের কোনো অংশে মেলানিনের অধিক উপস্থিতির কারণে ত্বক বেশি কালো দেখায়।

ত্বকের যেকোনো স্থানে মেছতা হতে পারে। মেছতা এক ধরনের লালচে দাগ, যা পরে কালো হয়। যা গালের ওপরের দিকে বেশি হয়। অনেক সময় নাকের ওপর চোয়ালে ও কপালেও এর বিস্তৃতি ঘটে। প্রায়ই সব বয়সী নারীদের ত্বকে এই সমস্যা দেখা দিতে পারে। মেছতার ইংলিশ নাম হচ্ছে মেলাজমা।

- মেছতার ধরন বা প্রকারভেদ
মেছতা দেখা যায় তিন ধরনের ।
1. অ্যাপিডার্মাল- অ্যাপিডার্মাল ত্বকের উপরিস্তরে থাকে। এটি চিকিৎসায় সম্পূর্ণ ভালো হয়।
2. ডার্মাল- ডার্মাল ধরনেরটি হলে বহির্ত্বকের নিচে মেছতার বিস্তৃতি থাকে। এটিও চিকিৎসায় ভালো হয়।
3. মিশ্র- মিশ্র ধরনের মেছতা বহির্ত্বক ও অন্তর্ত্বকে থাকে। এ ক্ষেত্রে চিকিৎসায়ও ভালো ফল না-ও হতে পারে।

মেছতা ত্বকের কোন স্তর পর্যন্ত বিস্তৃত, তা জানতে উড ল্যাম্প নামের একটি পরীক্ষার প্রয়োজন হয়।

🌸 মেছতা কি কি কারণে দেখা যেতে পারে
মেছতার সুস্পষ্ট কারণ খুঁজে পাওয়া যায় না অনেক ক্ষেত্রেই । হরমোনের তারতম্য একটি বড় কারণ হিসেবে চিহ্নিতয়। জন্মনিয়ন্ত্রণ বড়ি যদিও মেছতার একটি কারণ, তবে জন্মনিয়ন্ত্রণ বড়ি খেলেই মেছতা হবে এমন নয়। নিয়মিত জন্মনিয়ন্ত্রণ বড়ি সেবন, ইস্ট্রোজেন হরমোনথেরাপি গ্রহণ, গর্ভাবস্থায় শরীরে হরমোনজনিত পরিবর্তন, সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মির প্রভাব ইত্যাদিকে মেছতার জন্য দায়ী মনে করা হয়। আবার জীবনে এক দিনও এই বড়ি খাননি অথচ মুখে মেছতার দাগ হয়েছে এমনও হতে পারে।

মেছতা বিভিন্ন কারণে হয়ে থাকে, তারমধ্যে উল্ল্যেখযোগ্য প্রধান কারণ হচ্ছে সূর্য রশ্মি কোন প্রতিরক্ষা ছাড়াই অতিরিক্ত সূর্যের আলোতে গেলে মুখে মেছতা হয়, এছাড়াও আমাদের মুখে আরও বিভিন্ন কারণে মেছতা হয়ে থাকে,বিশেষ করে যারা প্রতিদিন বাইরে বের হওয়ার সময় মেকআপ করেন তাদের এই সমস্যাটা বেশি দেখা যায়

- মেছতার অন্যতম মূল কারণ সমূহ :
🗣️ হরমোন জাতীয় সমস্যা
🗣️ থাইরয়েডের সমস্যা
🗣️ মাতৃত্বকালীন সময়
🗣️ জন্ম নিয়ন্ত্রের পিল খেলে।
🗣️ অতিরিক্ত চিন্তা, কাজের চাপ, ঘুম কম হলে
🗣️ ত্বক নিয়মিত পরিচর্যা না করলে
🗣️ ত্বক নিয়মিত পরিষ্কার না করার কারণে মৃত কোষ ত্বকে অনেকদিন ধরে জমা হতে থাকে এবং ত্বকে মেছতা পরে যেতে পারে।
🗣️ মেছতার প্রধান এবং মূল কারন হল সূর্যের আলো। কোন প্রতিরক্ষা ছাড়াই অতিরিক্ত সূর্যের আলোতে গেলে এটি হতে পারে

মেছতার চিকিৎসা ব্যবস্থা:
হাইড্রোকুইনন মেছতার চিকিৎসায় বহুল ব্যবহৃত হয়। এর সঙ্গে ট্রেটিনয়েন ও স্টেরয়েড মিশিয়ে চিকিৎসা দিলে দ্রুত দাগ মিলিয়ে যায়। তবে অনেকে অজ্ঞতার কারণে ভেটনোভেট ধরনের ওষুধ দীর্ঘদিন ব্যবহার করেন। ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া এ ধরনের ওষুধ ব্যবহার করলে উপকারের চেয়ে ক্ষতি বেশি হয়। মেছতার সবচেয়ে আধুনিক চিকিৎসা হলো, মাইক্রোডার্মো অ্যাব্রেশন। এতে যন্ত্রের সাহায্যে ব্যথামুক্তভাবে ত্বকের সবচেয়ে ওপরের স্তর তুলে আনা হয়। এরপর ওষুধ প্রয়োগ করা হয়, যাতে দ্রুত মেছতা সেরে যায়। লেজারের মাধ্যমেও এখন চিকিৎসা হচ্ছে। যা অনেক বেশী ব্যয়বহুল

স্কিনকেয়ার এর মাধ্যেম কি মেছতা ভাল করা সম্ভব?
শুরু থেকে স্কিনকেয়ার করা গেলে অবশ্যই নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। আর যদি দীর্ঘদিন হয়ে যায় সে ক্ষেত্রে আপনি যদি ফুল স্কিনকেয়ার করতে তা হলে সময় সাপেক্ষে তা নিয়ন্ত্রণ সম্ভব। কিন্তু শুধু একটি ক্রিম ব্যবহার করে আপনি ঠিক হয়ে যাবেন এমন আশা করা মনে হয় ঠিক হবে না।

প্রতিরোধে করণীয়ঃ
কিছু বিষয় মেনে চলা খুব জরুরি চিকিৎসার পাশাপাশি । যেমনসূর্যের আলোর সরাসরি স্পর্শ এড়িয়ে চলা। যত ভালো চিকিৎসাই করানো হোক না কেন, সূর্যের আলোতে গেলে আবার মেছতার দাগ ফিরে আসতে পারে। তাই দিনের বেলা ঘরের বাইরে বের হলে সানব্লক বা সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে। অনেকেই সানস্ক্রিন মেখেই বাইরে চলে যান। মনে রাখা দরকার, ভালো ফল পেতে ঘরের বাইরে বের হওয়ার অন্তত আধাঘণ্টা আগে এটি মাখা উচিতl